রবিবার, ৩ মার্চ, ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন, ১৪৩০
Live TV
সর্বশেষ

হামাসের যুদ্ধবিরতির দাবি প্রত্যাখ্যান

দৈনিক দ্বীনের আলোঃ
৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ২:৪৪ এএম | 53
হামাসের যুদ্ধবিরতির দাবি প্রত্যাখ্যান
৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ২:৪৪ এএম | 53

ইসরায়েলেী প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু বুধবার হামাসের যুদ্ধবিরতির দাবি প্রত্যাখ্যান করেছেন এবং গাজার দক্ষিণে রাফাহ শহরে সৈন্যদের অগ্রসর হওয়ার প্রস্তুতির নির্দেশ দিয়েছেন। সেখানে দশ লাখেরও বেশি ফিলিস্তিনি উদ্বাস্তু আশ্রয় নিয়েছে।
মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন নেতানিয়াহুর সাথে সাক্ষাতের কয়েক ঘণ্টা পর তেল আবিবে বক্তৃতায় বলেছেন, তিনি এখনও ‘চুক্তিতে পৌঁছানোর জায়গা’ দেখেছেন এবং তিনি ইসরায়েলি নেতাকে এমন পদক্ষেপের বিরুদ্ধে সতর্ক করে বলেছেন, এতে ‘উত্তেজনা বৃদ্ধি’ পাবে। নেতানিয়াহু একটি টেলিভিশন ব্রিফিংয়ে বলেছেন, তিনি রাফাতে সৈন্যদের ‘অভিযানের প্রস্তুতির নির্দেশ দিয়েছেন এবং বলেছেন, হামাসের বিরুদ্ধে ইসরায়েলের ‘সম্পূর্ণ বিজয়’ মাত্র কয়েক মাস দূরে।
তবে তিনি সতর্ক করে বলেছেন, যুদ্ধবিরতির জন্য হামাসের ‘অদ্ভুত দাবি’ মেনে নেওয়া জিম্মিদের ফিরিয়ে আনার দিকে পরিচালিত করবে না বরং ‘এটি কেবল আরেকটি গণহত্যাকে আমন্ত্রণ জানাবে’।
বৈরুতে হামাসের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এক প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছেন, নেতানিয়াহুর ‘আগ্রাসন চালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে জোর দেওয়া সম্পূণরূপে নিশ্চিত করে যে, এর লক্ষ্য ফিলিস্তিনি জনগণের বিরুদ্ধে গণহত্যা চালানো।’
হামাসের কর্মকর্তা ওসামা হামদান, ‘সকল প্রতিরোধ গোষ্ঠীকে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার’ এবং ইসরায়েলি ‘এই সংঘর্ষের শেষ পর্যায়ে বিশ্বাসঘাতকতা’ থেকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।
নভেম্বরে একটি অস্থায়ী যুদ্ধবিরতি চুক্তির অংশ হিসেবে মুক্তি পাওয়া জিম্মিদের মধ্যে একজন ইসরায়েলি নেতার উপর চাপ সৃষ্টি করেন।
নেতানিয়াহুকে উদ্দেশ্য করে তেল আবিবে এক সংবাদ সম্মেলনে আদিনা মোশে বলেন, ‘সবকিছুই আপনার হাতে’।
তিনি বলেছিলেন, ‘আপনিই একজন এবং আমি খুব ভয় পাচ্ছি এবং খুব উদ্বিগ্ন যে আপনি যদি হামাসকে ধ্বংস করার মনমানসিকতা পরিহার না করেন, তাহলে মুক্তির জন্য কোনো জিম্মি অবশিষ্ট থাকবে না।’

error: Content is protected !!