বুধবার, ১৯ জুন, ২০২৪, ৫ আষাঢ়, ১৪৩১
Live TV
সর্বশেষ

চুয়াডাঙ্গার ১ও২ সংসদীয় নির্বাচনী আসনে ৯ জনের জামানত বাজেয়াপ্ত

দৈনিক দ্বীনের আলোঃ
৮ জানুয়ারি, ২০২৪, ৭:৫৭ অপরাহ্ণ | 19
চুয়াডাঙ্গার ১ও২ সংসদীয় নির্বাচনী আসনে ৯ জনের জামানত বাজেয়াপ্ত
৮ জানুয়ারি, ২০২৪, ৭:৫৭ অপরাহ্ণ | 19

মাহমুদ হাসান রনি,দামুড়হুদা(চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধিঃ চুয়াডাঙ্গার দুটি সংসদীয় আসনে ১৫ প্রার্থীর মধ্যে ৯ জন প্রার্থী তাদের জামানত হারিয়েছেন।১৫ প্রার্থীর মধ্যে রয়েছে জাতীয় পার্টির ২ জন, ন্যাশনাল পিপলস্ পার্টির ২ জন, জাকের পার্টির ১ জন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের ১ জন ও ৩ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন।
রবিবার ভোটগ্রহণ শেষে রিটানিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে ঘোষিত ফলাফল থেকে জানা যায়, বিধিমালা অনুযায়ী, কোনো প্রার্থীকে জামানত রক্ষা করতে হলে মোট বৈধ ভোটের (কাস্টিং ভোট) আট ভাগের এক ভাগ থেকে অন্তত একটি ভোট বেশি পেতে হবে।এব্যাপারে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. মোতাওয়াক্কিল রহমান বলেন, কোনো প্রার্থীকে জামানত রক্ষা করতে হলে কাস্টিং ভোটের সাড়ে ১২ শতাংশ বা কাস্টিং ভোটের আট ভাগের একভাগ থেকে অন্তত একটি ভোট বেশি পেতে হবে। এর কম ভোট পেলে তার জামানত বাজেয়াপ্ত হবে।সেক্ষেত্রে ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ী নির্বাচনী চুয়াডাঙ্গা-১ (তিতুদহ, বেগমপুর, নেহালপুর ও গড়াইটুপি ইউনিয়ন ব্যতীত চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা ও আলমডাঙ্গা উপজেলা) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী নৌকা প্রতীকের বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলাইমান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন ৯৬ হাজার ২৬৬টি ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঈগল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী দিলীপ কুমার আগারওয়ালা ৭২ হাজার ৭৬৮টি ভোট পেয়েছেন। এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ৮৩ হাজার ৯৮০ জন। ১৮১টি কেন্দ্রে ভোট পড়েছে ২ লাখ ৩৫ হাজার ৮১৭টি। এর ৮ ভাগের ১ ভাগ হচ্ছে ২৯ হাজার ৪৭৭টি ভোট, এই পরিমাণ ভোট পাননি এ আসনের ৩ জন প্রার্থী।তারা হলেন,এম শহিদুর রহমান (স্বতন্ত্র-ট্রাক) পেয়েছেন ৯৫৮ ভোট, ন্যাশনাল পিপলস্ পার্টির (এনপিপি-আম) প্রার্থী ইদ্রিস চৌধুরী পেয়েছেন ৫৪০ ভোট এবং জাতীয় পার্টির প্রার্থী অ্যাডভোকেট সোহরাব হোসেন (লাঙ্গল) পেয়েছেন ৫৭১ ভোট।
অন্যদিকে চুয়াডাঙ্গা-২ (দামুড়হুদা উপজেলা, জীবননগর উপজেলা, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার তিতুদহ, বেগমপুর, নেহালপুর ও গড়াইটুপি ইউনিয়ন) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী নৌকা প্রতীকের আলী আজগার টগর ১ লাখ ৭ হাজার ৫৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ট্রাক প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু হাসেম রেজা ৫৮ হাজার ৮৯৫টি ভোট পেয়েছেন।অন্যদিকে জামানত হারিয়েছেন তারা হলেন,জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ-মশাল) প্রার্থী দেওয়ান ইয়াছিন উল্লাহ তিনি পেয়েছেন ২১১ ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী নজরুল মল্লিক (ফ্রিজ) পেয়েছেন ৮২৯ ভোট, ন্যাশনাল পিপলস পাটির (এনপিপি-আম) পেয়েছেন ৪৩০ ভোট, জাতীয় পার্টির প্রার্থী রবিউল ইসলাম (লাঙ্গল) পেয়েছেন ৭৭৮ ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী নূর হাকিম (ঈগল) পেয়েছেন ২ হাজার ৬৫১ ভোট এ
ও জাকের পার্টির প্রার্থী আব্দুল লতিফ খান (গোলাপ ফুল) পেয়েছেন ৩ হাজার ২৭১ ভোট।

error: Content is protected !!