বুধবার, ২২ মে, ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১
Live TV
সর্বশেষ

মোঃ আমিনুর রহমান দুলাল

নীলফামারীর পিটিআই মোড়ে অসহায় ছিন্নমূলদের মাঝে বিনামূল্যে মিলছে খাবার

মোঃ আমিনুর রহমান দুলাল, নীলফামারী প্রতিনিধিঃ
২৯ জানুয়ারি, ২০২৪, ৬:২৬ অপরাহ্ণ | 67
নীলফামারীর পিটিআই মোড়ে অসহায় ছিন্নমূলদের মাঝে বিনামূল্যে মিলছে খাবার
২৯ জানুয়ারি, ২০২৪, ৬:২৬ অপরাহ্ণ | 67

২৯-০১-২৪ (সোমবার) দুপুরে নীলফামারীর পিটিআই মোড়ে রাস্তার পাশে বাস থেকে নেমেই দেখা যায় বেশকিছু ছিন্নমূল মানুষ রাস্তার ধারে বসে খাচ্ছে খাবার।সঙ্গে চারপাশে ব্যানারে লেখা ‘মানবতার হোটেল’। যেখানে আছে বসার সুন্দর জায়গা , প্লেট,খালি, হাড়ি আর ছোট ছোট পানির ড্রাম। তার সামনে এক ঝাক তরুণ স্বেচ্ছাসেবী খাওয়ানোর কাজে অনেক ব্যাস্ত দেখা যায়। কাছে গিয়ে পরিচয় দিয়ে ‘মানবতার হোটেলের’ বিষয়ে জানতে চাইলে আবু তালেব নামের এক সদস্য বলেন, এখানে ছিন্নমূল অসহায় মানুষদের বিনামূল্যে খাবার দিচ্ছি আমরা।

দুপুরের খাবার বিতরণের শেষের দিকে হোটেলের দুই জন ভলান্টিয়ারের হাতের ফাইল ঘেঁটে দেখা যায়, ফাইলটিতে ব্যক্তির নাম, বয়স ও পেশা বিবরণ সহ সুন্দর করে লেখা আছে। বয়স বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, সেখানে খেতে যাওয়া অধিকাংশই বৃদ্ধ ও মধ্যবয়সী এই মানবতার হোটেলে খেতে আসছে।

হোটেলটির পরিচালক তুহিন ইসলাম বলেন, ছিন্নমূল, অসহায়, রিকশাচালক, ফেরিওয়ালা, চা দোকানদার এমনকি পথচারীরাও এখান থেকে বিনা টাকায় খাবার খেতে পারেন। আজকে ২০০শত জনের বেশি মানুষ খাবার খেয়েছে। দুপুর ১২ টা থেকে ২টা পর্যন্ত মাঝে মাঝে বিকেল ৩টা পর্যন্ত খাবার থাকে আমাদের কাছে যে কেউ এখানে খাবার খেতে পারবেন। তবে আজ এখানে ২টার পরেই খাবার শেষ হয়ে গেছে।

পাশেই চা-বিস্কিটের দোকান চালান। দোকানি জামাল উদ্দিন চাচা বলেন, আমার ছোট দোকান বাবা সারা দিনে বিক্রি করি দুই শত টাকা এ দিয়ে সংসার চলে না। আর বাসায় গিয়ে খেতে সময় লাগে দোকান বন্ধ থাকলে সেটুকুও বিক্রি হবে না । আশপাশে খাবার হোটেল নেই যে কম টাকায় খাবো। তাই এখানে বিনা টাকায় খাই। মানবতার হোটেল আমার জন্য একটা আর্শীবাদ বলা যায়। তাদের এ উদ্যোগ অনেক মহৎ।

এসময় বিনামূল্যের খাবার খেয়ে পাশের রাস্তার ফুটপাতে কয়েকজনকে ঘুমিয়ে থাকতে দেখা যায়। যাদের বেশিরভাগই নীলফামারীর ফুটপাতের ছিন্নমূল মানুষ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ‘মানবতার হোটেল’ মূলত একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন পোভার্টি ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের প্রজেক্ট। সংগঠনটির বেশ কিছু সদস্য রয়েছে। তারা এলিভেন মেম্বার নামে একটি টিম গঠন করছে দিন ১১ টাকা হারে আর্থাৎ মাসে ৩৩০ টাকা করে চাঁদা দিয়ে মাস শেষে টাকাগুলো একত্রিত করে। কিছু শুভাকাঙ্ক্ষীদের যৌথ আথার্য়নে। এই ভালো কাজগুলো করে আচ্ছে জানিয়েছেন । এমন শর্তে ২০১৮ সাল থেকে বিভিন্ন জায়গায় ছিন্নমূল মানুষদের খুঁজে ভ্রমমাণ ভাবে খাবার খেয়ে আসছেন তারা। এখন নীলফামারী জেলার পিটিআই মোড়ে প্রথম চালু হয় ‘মানবতার হোটেল’।তাদের অর্থ সংকটের কারণে সপ্তাহে একদিন খাওয়ানো সিদ্ধান্ত নেন তারা। পরবর্তী সময়ে সকলের সহযোগিতা ও ভালোবাসার মধ্য দিয়ে প্রতিদিন খাওয়ানোর কার্যক্রম শুরু করবেন সেখানে ।এরপর একে একে রংপুর ও রাজধানীতে‘মাবতার হেটেল’ এর মাধ্যমে বিনামূল্যে অসহায় ছিন্নমূলদের খাবার খাওয়াবেন এই আশা করেন তারা।হোটেলে খাবারের মধ্যে থাকে খিচুড়ি, ডিম, সবজি কিংবা মাংস ডাল, সাদা ভাত। তৃপ্তি সহকারে খেতে পারেন যে কেউ।

নীলফামারী পিটিআই মোড়ের মানবতার হোটেলের সদস্য ফেরদৌস ইসলাম, জিয়ারুল ইসলাম(জিয়া),আল-আমিন, তারা জানান,তাহারা ভালো লাগার জায়গা থেকেই নিজেকে এ কাজের সঙ্গে যুক্ত করেছেন। মানুষকে খাওয়াতে পেরেই তাদের আনন্দ। এমন ভালো কাজের সঙ্গে থাকতে পারে নিজের প্রতি তাদের গর্বও হয়।

error: Content is protected !!