শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০২৪, ২৯ আষাঢ়, ১৪৩১
Live TV
সর্বশেষ

বরিশালের চাঞ্চল্যকর রুবেল হত্যাকাণ্ডে জড়িত পলাতক আসামী আরিফকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০

দৈনিক দ্বীনের আলোঃ
১৭ জানুয়ারি, ২০২৪, ৪:৩২ অপরাহ্ণ | 51
বরিশালের চাঞ্চল্যকর রুবেল হত্যাকাণ্ডে জড়িত পলাতক আসামী আরিফকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০
১৭ জানুয়ারি, ২০২৪, ৪:৩২ অপরাহ্ণ | 51

মো:হামীম এম.এ ঃ

“বাংলাদেশ আমার অহংকার” এই স্লোগান নিয়ে র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‍্যাব) প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বিভিন্ন ধরণের অপরাধীদের গ্রেফতারের ক্ষেত্রে জোরালো ভূমিকা পালন করে আসছে। র‍্যাবের সৃষ্টিকাল থেকে বিপুল পরিমাণ অবৈধ অস্ত্র, গোলাবারুদ উদ্ধার, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, খুনি, ছিনতাইকারী, অপহরণ ও প্রতারকদের গ্রেফতার করে সাধারন জনগণের মনে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে সংঘটিত চাঞ্চল্যকর হত্যাকান্ডে জড়িত অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে র‍্যাব জনগণের সুনাম অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে”

গত ০৩ জানুয়ারি ২০২৪ খ্রিঃ তারিখে বরিশাল জেলার মুলাদী থানাধীন টুমচর এলাকায় বসবাসকারী রুবেল শাহ তার স্ত্রী, কন্যা ও ছেলেকে নিয়ে তাদের বাড়ীর নিকবটর্তী জাগরনী বাজারে বাজার করার উদ্দেশ্যে রওনা করে। অতঃপর আনুমানিক সকাল ০৮:০০ ঘটিকায় ঘটনাস্থল মুলাদী থানাধীন টুমচর এলাকার একটি পাকা রাস্তার উপর পৌছামাত্র পূর্বহতে ওৎপেতে থাকা আরিফ আকনসহ ২৪-৩৫ জন লোক পূব শত্রæতার জের ধরে পূর্বপরিকল্পিতভাবে রুবেলের উপর অতর্কিত আক্রমক করে। এসময় তারা রুবেলের স্ত্রী, মেয়ে ও ছেলেকে আটকে রাখে এবং ভিকটিম রুবেলকে ঝাপটে ধরে তার মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে চাপাতি ও রাম দা দিয়ে এলোপাথাড়িভাবে কোপাতে থাকে। একপর্যায় রুবেলের স্ত্রী ও মেয়ের ডাক-চিৎকারে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলের দিকে এগিয়ে আসলে আরিফসহ অন্যান্য আসামীরা রুবেলের স্ত্রী, ছেলে ও মেয়েকে রুবেলকে কেউ বাচাতে আসলে বা মামলা মোকাদ্দমা করলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি প্রদর্শন করে রুবেলকে গুরুতর আহত অবস্থায় ফেলে রেখে ঘটনাস্থল হতে পালিয়ে যায়। অতঃপর রুবেলের স্ত্রী ও সন্তানরা স্থানীয় লোকজনদের সহযোগীতায় রুবেলকে গুরুতর আহত অবস্থায় ভ্যান যোগে চিকিৎসার জন্য নিকটবর্তী কালকিনি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রুবেল মৃত ঘোষনা করেন।

উক্ত ঘটনায় মৃত রুবেলের স্ত্রী মোছাঃ নার্গিস বেগম বাদী হয়ে বরিশাল জেলার মুলাদী থানায় চাঞ্চল্যকর রুবেল শাহ্ হত্যাকাÐে সরাসরি জড়িত আরিফ আকনসহ ৩৫ জন এবং অজ্ঞাতনামা আরো ৮-১০ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন যার মামলা নং-০২, তাং-০৯/০১/২০২৪ খ্রিঃ, ধারা-৩৪১/৩০২১১৪/৫০৬/৩৪ দণ্ড বিধি। উক্ত হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া গুরুত্বের সাথে প্রচারিত হলে দেশব্যাপী ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে। পরবর্তীতে উক্ত মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আসামী আরিফ আকনকে গ্রেফতারের লক্ষ্যে অধিনায়ক র‌্যাব-১০ বরাবর একটি অধিযাচনপত্র প্রেরণ করেন। উক্ত অধিযাচনপত্রের ভিত্তিতে র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল চাঞ্চল্যকর রুবেল হত্যাকাণ্ডে জড়িত আসামীদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করে।

এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল ১৬ জানুয়ারি ২০২৪ খ্রিঃ তারিখ আনুমানিক রাত ১৯:১০ ঘটিকায় র‌্যাব-১০ এর উক্ত আভিযানিক দল গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ও তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তায় রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ী এলাকায় একটি অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত অভিযানে উল্লেখিত বরিশালের মুলাদী এলাকায় পূর্বশত্রæতার জের ধরে চাঞ্চল্যকর রুবেল হত্যাকাণ্ডে সরাসরি জড়িত পলাতক আসামী আরিফ আকন (৩০), পিতা-মৃত মান্নান আকন, সাং-টুমচর, থানা-মুলাদী, জেলা-বরিশাল’কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

উল্লেখ্য যে, এই ধরণের অভিযান সচল রাখতে র‌্যাব-১২ সিপিসি-১ কুষ্টিয়া বদ্ধপরিকর। র‌্যাব-১২ সিপিসি-১ কুষ্টিয়াকে তথ্য দিন মাদক, অস্ত্র ও জঙ্গীমুক্ত বাংলাদেশ গঠনে অংশ নিন।

 

 

error: Content is protected !!