বুধবার, ২২ মে, ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১
Live TV
সর্বশেষ

সুনামগঞ্জে সুলেমান হত্যার বিচারের দাবীতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

দৈনিক দ্বীনের আলোঃ
১৪ জানুয়ারি, ২০২৪, ১:৫৬ অপরাহ্ণ | 24
সুনামগঞ্জে সুলেমান হত্যার বিচারের দাবীতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন
১৪ জানুয়ারি, ২০২৪, ১:৫৬ অপরাহ্ণ | 24

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:

সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার সুলেমান মিয়া হত্যা মামলার আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।
আজ (১৪ জানুয়ারি) রবিবার সকাল ১১টায় উপজেলার বরই বাজারে এলাকাবাসীর ব্যানারে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
জয়শ্রী ইউনিয়নের ৭নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুস সাত্তার’র সভাপতিত্বে ও ইউপি সদস্য রাসেল আহমদ সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, আহত দীন ইসলাম, বরই বাজার পরিচালনা কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জুয়েল মিয়া, জয়শ্রী ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ সভাপতি রয়েল মিয়া, সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহম্মদ প্রমুখ। মানববন্ধনে বক্তরা বলেন, সুলেমান হত্যা কান্ডের আসামিদের দ্রুত সময়ের মধ্যে আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবী জানাই অন্যথায় কটুর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।
সংঘর্ষের ঘটনায় আহত উপজেলার শান্তিপুর গ্রামের বাসিন্দা দীন ইসলাম (৩৮) বাদী হয়ে গত ২জানুয়ারি রাতে একই গ্রামের নজরুল ইসলাম (৪৫)সহ ১০জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা ৮-১০জন আসামি করে ধর্মপাশা থানায় একটি মামলা করেছেন।
উল্লেখ্য, ধর্মপাশা উপজেলার শান্তিপুর গ্রামের বাসিন্দা ও ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রাসেল আহমেদ এর সঙ্গে একই গ্রামের নজরুল ইসলাম জমি সংক্রান্ত নানা বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। গত ২৬ ডিসেম্বর সকাল ১১টার দিকে ৬/৭জন লোক নিয়ে ইউপি সদস্য রাসেল আহমদ সাতারিয়া হাওরের বোরো জমিতে পানি সেচের জন্য ড্রেইন নির্মাণ কাজ শুরু করেন। খবর পেয়ে ওইদিন সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ১০/১২জন লোকসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সেখানে গিয়ে ড্রেইন নির্মাণের জায়গাটি নিজের দাবি করে একই গ্রামের নজরুল এই কাজে বাধা দেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বেধে যায়। সংঘর্ষে গুরুতর আহত ইউপি সদস্য ও শান্তিপুর গ্রামের বাসিন্দা রাসেল আহমদ (৩৩), দ্বীন ইসলাম (৩৮), সুলেমান মিয়া (৩১), মিজানুর রহমান (৪০), রতন মিয়া(৫০) ও লোকমান (২৩)কে উদ্ধার করে বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ধর্মপাশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় ওইদিন রাতেই আহত ছয়জনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতদের মধ্যে গত মঙ্গলবার সকাল পৌনে নয়টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সুলেমান মিয়া মারা যান। তার বাড়ি উপজেলার শান্তিপুর গ্রামে। এ ঘটনা জড়িতদের রাত সাড়ে ১২টার দিকে নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ উপজেলার নাগডড়া গ্রাম থেকে এজহার নামীয় আসামি নাঈম মিয়া (২২)কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
ধর্মপাশা থানার এসআই আবদুস সবুর বলেন, মামলার এজহার নামীয় আসামিদের মধ্যে নাঈমকে কে গ্রেপ্তার করে ধর্মপাশা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের মাধ্যমে তাকে সুনামগঞ্জ জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার পর থেকেই আসামিরা পলাতক রয়েছে। মামলার সকল আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

error: Content is protected !!